নিম গাছের নির্যাসে করোনা সারবে,ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড রিসার্চের বাঙালি বিজ্ঞানীরা

আগমনী ডেস্কঃ ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড রিসার্চের বাঙালি বিজ্ঞানীরা বলেছেন নিম গাছের নির্যাসে করোনা সারবে,এমনই গবেষণা করেছেন আইআইএসইআর কলকাতা বা ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স এডুকেশন এন্ড রিসার্চের এক অধ্যাপিকার বাঙালি বিজ্ঞানী জয়শ্রী দাস শর্মার নেতৃত্বে তার ছাত্রছাত্রী লাকি সরকার, রবি করণ পুটচালা, আব্বাস আলাও সাফিরিউ।গবেষণা করে তারা দেখিয়েছেন, নিম গাছের ছালের নির্যাস ইঁদুরের শরীরে করোনাভাইরাস আটকাতে সক্ষম।এই গবেষণাটি গত ১৪ এপ্রিল আন্তর্জাতিক স্তরে গবেষণাপত্রে স্বীকৃতি পেয়েছে।

এবার এই নিম গাছের ছালের নির্যাস মানুষের শরীরে করোনাভাইরাস আটকাতে সক্ষম হয় কী-না তার কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে।তবে মানুষের শরীরে গবেষণা করার মত পরিকাঠামো এই মুহূর্তে আইআইএসইয়ারে না থাকায় সুইডেনের এক বিজ্ঞানীর সহযোগিতায় এই গবেষণা চলছে সেখানে।

গত কয়েক বছর ধরেই আইআইএসইআর কলকাতার জীব বিজ্ঞানের অধ্যাপিকা ড. জয়শ্রী দাস শর্মা এবং তার গবেষক ছাত্রছাত্রী এই নিয়ে কাজ করে চেলেছেন৷ তারা পরীক্ষামূলক ভাবে ইঁদুর মডেলের ওপর করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং রোগ সৃষ্টিকারী বিষয়ের উপর গবেষণার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

নিম একটি প্রাচীন ঔষধিগাছ যেটি আলসার, ম্যালেরিয়া এবং ক্যান্সার নিরোধক হিসেবে বহুল প্রচারিত। এই নিম ভাইরাস এবং পোষক কোষের মধ্যে সংযোগের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ক্ষমতা রাখে। গবেষকরা জানাচ্ছেন, এই গবেষণা থেকে অনেকটাই নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে যে নিম গাছের ছালের নির্যাস ভাইরাস পোশক কোষের সঙ্গে সংযুক্তিতে সরাসরি বাধা দেয়। নিম গাছের ছালের নির্যাসের গ্রুপের উপাদানগুলির করোনাভাইরাস সংক্রমিত রোগ প্রতিরোধের সম্ভাবনা রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে ড. জয়শ্রী দাস শর্মা জানিয়েছেন,নিম গাছের ছালের নির্যাসের কোন উপাদানগুলি এই রোগটি প্রতিরোধ করতে পারবে তা নিয়েও গবেষণা শুরু হয়েছে। আমরা আশাবাদী এই গবেষণার মধ্য দিয়ে শীঘ্রই কোনও ইতিবাচক ফলাফল পাব যা কোভিড-১৯ কে দূর করতে পারবে।







সম্পাদক ও প্রকাশকঃ জামাল হোসেন
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মোঃ মোনাজ্জেল হোসেন খান
নির্বাহী সম্পাদক : নাঈম ইসলাম
বার্তা ও বানিজ্যিক কার্যালয়ঃ ৭কে,মেহেরবা প্লাজা ৩৩ তোপাখানা রোড,ঢাকা
ফোনঃ 01947171171
মেইলঃdailyagomoni2018@gmail.com
প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ।